somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

মিশু মিলন

আমার পরিসংখ্যান

মিশু মিলন
quote icon
আমি বর্তমানে ইস্টিশন এবং সামহোয়্যার ইন ব্লগে লিখি। আমার সকল লেখা আমি এই দুটি ব্লগেই সংরক্ষণ করে রাখতে চাই। এই দুটি ব্লগের বাইরে অনলাইন পোর্টাল, লিটল ম্যাগাজিন এবং অন্য দু-একটি ব্লগে কিছু লেখা প্রকাশিত হলেও পরবর্তীতে কিছু কিছু লেখা আমি আবার সম্পাদনা করেছি। ফলে ইস্টিশন এবং সামহোয়্যার ইন ব্লগের লেখাই আমার চূড়ান্ত সম্পাদিত লেখা। এই দুটি ব্লগের বাইরে অন্যসব লেখা আমি প্রত্যাহার করছি। মিশু মিলন ঢাকা। ৯ এপ্রিল, ২০১৯।
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- ঊনিশ )

লিখেছেন মিশু মিলন, ২৬ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৮

ঊনিশ

নিত্যদিনের মতোই শুকতারা ডুবে গেছে, ভোরের আলোয় উবে যাচ্ছে অন্ধকার, বকুলবৃক্ষে কয়েকটি পাখি কলকাকলি করছে, শবরী গৃহের ছাদে মাদুরের ওপর শুয়ে আছে অনন্ত আকাশের দিকে তাকিয়ে। সারারাত্রি একটুও ঘুমোয় নি সে, ঋষ্যশৃঙ্গ’র বিরহে নীরবে চোখের অশ্রু বিসর্জন দিয়েছে, যতোবার তার মনে হয়েছে যে তারই নিয়ে আসা কাদার পুতুল নিয়ে এখন... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৩৮ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- আঠারো )

লিখেছেন মিশু মিলন, ২৪ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:০৫

আঠারো

বিবাহের পর মুনিকুমার ঋষ্যশৃঙ্গ এবং রাজকুমারী শান্তা তিনরাত্রি উপরতি বা পরিহার অনুষ্ঠান পালন করেছে। এই তিনরাত্রি তারা যৌন সংসর্গ পরিহার করে মেঝের ওপর শয়ন করেছে। আজ পুষ্পশয্যার রাত্রি, আজ তারা যৌনমিলনে লিপ্ত হবে। তাই আজ আবার সন্ধ্যার পর থেকেই উৎসবমুখর হয়ে উঠেছে চম্পানগরী, আজ যে বৃষ্টি নামবে! আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা নানা বয়সের... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৬৩ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- সতের )

লিখেছেন মিশু মিলন, ২৩ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০৮

সতের

চম্পানগরী এখন উৎসবমুখর, নিভু নিভু হয়ে জ্বলতে থাকা মানুষের আশার প্রদীপটি হঠাৎ দপ করে জ্বলে উঠে ঔজ্জ্বল্য ছড়াতে শুরু করেছে গণিকারা মুনিকুমার ঋষ্যশৃঙ্গকে হরণ করে নিয়ে আসায়; একে তো মুনিকুমার ঋষ্যশৃঙ্গ’র সঙ্গে মহারাজ লোমপাদের একমাত্র কন্যার বিবাহ হবে, তার ওপর বহুদিন বাদে অঙ্গরাজ্যে বৃষ্টিপাত হতে চলেছে, বহু অপেক্ষার পর পূরণ... বাকিটুকু পড়ুন

৯ টি মন্তব্য      ৪৪ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- ষোলো )

লিখেছেন মিশু মিলন, ২২ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:৩২

ষোল

রৌদ্রজ্জ্বল দ্বিপ্রহরে তরণী ভেসে চলেছে চম্পানগরীর দিকে, আর মাত্র দুই ক্রোশ পথ পাড়ি দিলেই চম্পানগরী। রঘুর নির্দেশে এরই মধ্যে মাস্তুলে অঙ্গরাজ্যের ধ্বজার নিচে আরও একটি বর্ণিল ধ্বজা উড়িয়েছে সুকেতু। গণিকারা সফলভাবে ঋষ্যশৃঙ্গকে হরণ করতে পারলে নগরী থেকে কয়েক ক্রোশ দূরে থাকতেই মাস্তুলে অঙ্গরাজ্যের ধ্বজার নিচে বর্ণিল ধ্বজাটি উড়ানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন... বাকিটুকু পড়ুন

৯ টি মন্তব্য      ৬৩ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- পনেরো)

লিখেছেন মিশু মিলন, ২০ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৫:৩৩

পনের

জন্মনের হাটের ঘাটে রঘু তরণী নোঙর করলো মধ্যাহ্নের পর পর। মধ্যাহ্নভোজনের পর দাঁড়িদের একটু বিশ্রাম প্রয়োজন, আজ যাত্রা করলে চম্পানগরীতে পৌঁছতে রাত্রি হয়ে যাবে। তাই রাত্রি এখানে অতিবাহিত করে কাল ভোরবেলায় তারা যাত্রা করবে চম্পানগরীর উদ্দেশ্যে। হাটে প্রচুর মানুষ; কেউ যাচ্ছে, কেউ আসছে। তরণীতে আজই হবে গণিকাদের শেষ রাত্রি, গিরিকা... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৫৩ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- চৌদ্দ)

লিখেছেন মিশু মিলন, ১৭ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২৬

চৌদ্দ

এখন দিবসের প্রথম প্রহর। ঋষ্যশৃঙ্গ তুলসীতলা থেকে অনেকটা দূরত্বে নিমীলিত চোখে ধ্যান করছে, সম্মুখে প্রজ্বলিত অগ্নি। ঘৃতস্নাত চন্দন কাষ্ঠ জ্বলছে বাতাসে সুবাস ছড়িয়ে। মহর্ষি বিভাণ্ডক আশ্রমে নেই, তিনি ফল এবং কাষ্ঠ সংগ্রহ করতে গেছেন অরণ্যে। সকাল থেকেই বানর শাবকটির দেখা নেই আজ, দক্ষিণ দিকের পথের পাশে একে অন্যের গা ঘেঁষে... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৫৭ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- তেরো)

লিখেছেন মিশু মিলন, ১৬ ই অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১১:১১

তেরো

গণিকারা মুনিকুমার ঋষ্যশৃঙ্গকে হরণের উদ্দেশ্যে যাত্রা করার সঙ্গে সঙ্গেই রাজবাড়ীতে ব্রাহ্মণদের সন্তুষ্টির জন্য যজ্ঞের আয়োজন শুরু হয়েছিল। রাজবাড়ীর কর্মচারীবৃন্দ রাজ্যের দিকে দিকে তরণী এবং রথারোহণে ছুটে গিয়েছিলেন ব্রাহ্মণদেরকে নিমন্ত্রণপূর্বক তাদেরকে সঙ্গে করে নিয়ে আসার জন্য। অধিক রুগ্ন এবং নাবালক ব্যতিত বালক থেকে বৃদ্ধ, প্রায় সকল ব্রাহ্মণই সানন্দে যজ্ঞানুষ্ঠানে... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৫৮ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- বারো)

লিখেছেন মিশু মিলন, ১৩ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০০

বারো

মুনিকুমার ঋষ্যশৃঙ্গকে বিভ্রান্ত-মোহাবিষ্ট করার পর কৌশিকী পারের এক জন্মনের ঘাটে একনাগাড়ে তিনদিন অতিবাহিত করে গতকাল সন্ধ্যায় গণিকাদের তরণী নোঙর করেছে ত্রিযোজনব্যাপী পর্বতের সবচেয়ে নিকটবর্তী স্থানে। জন্মনের অস্থায়ী হাট থেকে প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য এবং অন্যান্য জিনিসপত্র ক্রয় করা হয়েছে। গিরিকার বেশ ভাল লেগেছিল জন্মনটি, অপরাহ্ণে কন্যাদের নিয়ে নদীর পার ধরে জন্মনের পথে... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৪৯ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- এগারো)

লিখেছেন মিশু মিলন, ০৯ ই অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:৫৬

এগারো

মহর্ষি বিভাণ্ডক একা একা দিকভ্রান্তের ন্যায় অরণ্যে হাঁটতে হাঁটতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছেন, গত দু-দিনও তিনি এমনিভাবে হেঁটে অরণ্য চষে বেড়িয়েছেন সেই নারীর খোঁজে যে তাঁর একমাত্র পুত্রকে পথভ্রষ্ট করতে আশ্রমে এসেছিল। সেই প্রভাতে আশ্রম থেকে বেরিয়ে তন্ন তন্ন করে খুঁজেছেন অরণ্য, আর একবারে ফলমূল সংগ্রহ করে আশ্রমে ফিরেছেন মধ্যা‎হ্ন গড়িয়ে... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৫৯ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- দশ)

লিখেছেন মিশু মিলন, ০৮ ই অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:৫৪

দশ

ভোরবেলায় স্বপ্ন দেখে যখন শবরীর ঘুম ভাঙলো তখন কৌশিকীর বক্ষ থেকে অন্ধকার মুছে গেছে, অরণ্যে পাখিরা কিচির-মিচির করছে, পাশে উমা তখনো ঘুমোচ্ছে। শবরী শয্যায় উঠে বসে বাতায়নের বাইরে তাকিয়ে ভাবতে লাগলো স্বপ্নের কথা। স্বপ্ন দেখেছে- সে মুনিকুমার ঋষ্যশৃঙ্গ’র সঙ্গে কন্দুক নিয়ে খেলছে! মুনিকুমারের মস্তকে জটা আর মৃগের ন্যায় বৃহৎ একটি... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৫৬ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- নয়)

লিখেছেন মিশু মিলন, ০৫ ই অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২০

নয়

তরণী এখন গঙ্গা আর কৌশিকী নদীর মোহনায়; উত্তরদিক থেকে কৌশিকী এসে মিশেছে গঙ্গায়, আর গঙ্গা এখান থেকে এঁকে-বেঁকে পূর্বদিকের ভাটির রাজ্য বঙ্গের মধ্য দিয়ে গিয়ে লীন হয়েছে সমুদ্রে। রঘু তরণী ঘুরিয়েছে কৌশিকীর দিকে। গিরিকা ও তিনকন্যা ছাদে দাঁড়িয়ে নদীর সৌন্ধর্য দেখছে, আর গিরিকা কন্যাদের কৌতুহলী নানান প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে। কৌশিকী... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৫১ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- আট)

লিখেছেন মিশু মিলন, ০২ রা অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:৫৩

আট

শ্যাম নিষাদপুত্র, চম্পানগরী থেকে দুই ক্রোশ পূর্বে গঙ্গাপারের এক নিষাদ জন্মনে তার নিবাস, অন্য দাঁড়িদেরও তাই। এখানে আসবার পথে তারা দূর থেকে নিজেদের জন্মন্ দেখে চোখের শান্তি পেলেও ক্ষণকালের জন্য মনোপীড়ায় আক্রান্ত হয়ে পড়েছিল। চাইলেই তারা ইচ্ছে মতো নিজগৃহে যেতে পারে না, অনেক দিন পর পর গৃহে যাবার ছুটি পায়।... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৬২ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- সাত)

লিখেছেন মিশু মিলন, ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:১২

সাত

বাতায়নের ধারে বসে গঙ্গার বুকে জেগে ওঠা ধূসর বালুচরের ওপর দিয়ে দূরের জন্মনের দিকে তাকিয়ে আছে শবরী। ঐসব জন্মনে কারা থাকে? তারা দেখতে কেমন? কেমন তাদের জীবনযাপন? নানান রকম কৌতুহলী প্রশ্নজাগ্রত ভাবনায় ডুবে আছে সে। বুদ্ধি হবার পর সে মাত্র দু-তিনবার চম্পানগরীর বাইরে পা দিয়েছে। ছোট তরণীতে আরোহণ করে সেই... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৬৭ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- ছয়)

লিখেছেন মিশু মিলন, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৩১

ছয়

পূর্ব-দিগন্ত রক্তিমরূপ ধারণ করেছে, কিছুক্ষণের মধ্যেই হয়তো দিগন্তের বৃক্ষরাজির আড়াল থেকে উঁকি দেবে সূর্য। চম্পানগরীর বৃক্ষতল কিংবা গৃহের আড়াল-আবডালের আবছায়া আঁধার ক্রমশ উবে যাচ্ছে। কোনো কোনো গৃহ থেকে ভেসে আসছে সামগীতের সমধুর সুর। নগরীর প্রান্তে দরিদ্র শুদ্রদের গৃহে আবদ্ধ কুক্কুট প্রভাত বরণের ধ্বনি তুলছে। নগরীর পথে দু-চারজন মানুষ হেঁটে চলেছে... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৫৭ বার পঠিত     like!

নাগরী (উপন্যাস: পর্ব- পাঁচ)

লিখেছেন মিশু মিলন, ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৫৪

পাঁচ

অপরাহ্নে রাজকুমারী শান্তা যখন শুনলো যে রাজ্যের খরা নিবারণের নিমিত্তে ইন্দ্রদেবকে সন্তুষ্ট করে বৃষ্টি কামনায় শাস্ত্রীয় বিধান অনুযায়ী রাজপুরোহিতের পরামর্শে একদল গণিকাকে পাঠানো হচ্ছে এক বনবাসী মুনিকুমারকে হরণ করে নিয়ে আসার জন্য, যার সঙ্গে শীঘ্রই তার শুভবিবাহ অনুষ্ঠিত হবে; তখন রাজকন্যা ভীষণ বিচলিত হলো, মর্মবেদনায় নিজের শয়নকক্ষের কপাট রুদ্ধ করে... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ৭৬ বার পঠিত     like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ৫২৭৬৮ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ