somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

এই ব্লগটি স্থগিত অথবা বাতিল করা হয়েছে

আলোচিত ব্লগ

লাইকা লেন্সে তোলা ক’টি ছবি

লিখেছেন অর্ক, ১৭ ই জুন, ২০২৪ সকাল ১১:৩০




ঢাকার বিমানবন্দর রেল স্টেশনে ট্রেন ঢোকার সময়, ক্রসিংয়ে তোলা। ফ্ল্যাস ছাড়া তোলায় ছবিটি ঠিক স্থির আসেনি। ব্লার আছে। অবশ্য এরও একরকম আবেদন আছে।




এটাও রেল ক্রসিংয়ে তোলা।... ...বাকিটুকু পড়ুন

আপনি কার গল্প জানেন ও কার গল্প শুনতে চান?

লিখেছেন সোনাগাজী, ১৭ ই জুন, ২০২৪ বিকাল ৫:৩১



গতকাল সন্ধ্যায়, আমরা কিছু বাংগালী ঈদের বিকালে একসাথে বসে গল্পগুজব করছিলাম, সাথে খাওয়াদাওয়া চলছিলো; শুরুতে আলোচনা চলছিলো বাইডেন ও ট্রাম্পের পোল পজিশন নিয়ে ও ডিবেইট নিয়ে; আমি... ...বাকিটুকু পড়ুন

বাবাকে আমার পড়ে মনে!!!

লিখেছেন সেলিম আনোয়ার, ১৭ ই জুন, ২০২৪ সন্ধ্যা ৭:৫২

বাবাকে আমার পড়ে মনে
ঈদের রাতে ঈদের দিনে
কেনা কাটায় চলার পথে
ঈদগাহে প্রার্থনায় ..
বাবা হীন পৃথিবী আমার
নিষ্ঠুর যে লাগে প্রাণে।
কেন চলে গেলো বাবা
কোথায় যে... ...বাকিটুকু পড়ুন

নির্বাচিত ব্লগ

ক্যারাভান-ই-গজল - তালাত আজিজ

লিখেছেন ইফতেখার ভূইয়া, ১৬ ই জুন, ২০২৪ ভোর ৬:৩১


ভারতীয় অন্যতম গজল শিল্পীদের তালিকায় তালাত আজিজের নাম অবশ্যই থাকবে বলে আমার ধারনা। তার বেশ কিছু গান আমার শোনা হয়েছে অনেক আগেই। জগজিৎ সিং, পঙ্কজ উদাস ও গুলাম আলী সাহেবের প্রায় সবগুলো এ্যালবাম-ই আমার কালেকশানে রয়েছে। তবে তালাত সাহেবের ক্ষেত্রে আমার এ্যালবাম কালেকশান এর সংখ্যাটা খুব বেশী নয়। বহু বছর আগে হঠাৎই অনলাইনে দেখলাম তালাত সাহেবের "ক্যারাভান-ই-গজল" এ্যালবামটি রিলিজ হয়েছে কয়েক বছর আগেই। কয়েকটা ট্র্যাক শোনার পর মনে হলো বেশ ভালো এ্যলবাম।

নিউ ইয়র্কে তেমন ভালো ভারতীয় সিডির দোকান খুঁজে পাচ্ছিলাম না যার কাছে এই এ্যালবামটা আছে। দিন শেষে সিদ্ধান্ত নিলাম ভারত থেকেই আনাবো। সঠিক সালটা মনে নেই তবে খুব... ...বাকিটুকু পড়ুন

সেইন্ট মার্টিন ও কোক ইস্যু

লিখেছেন নিবারণ, ১৫ ই জুন, ২০২৪ রাত ১১:৩৪

বিগত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় সবচেয়ে চর্চিত বিষয়, কোকের বয়কট ও গত দুই দিন ধরে সেইন্ট মার্টিন মায়ানমার দখল করে নেয়ার খবর।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশ্রিভাবে ছড়িয়ে পড়েছে, মায়ানমার সেইন্ট মার্টিন দখল করে নিচ্ছে। তাই সমুদ্রে বাংলাদেশি জাহাজ দেখলেই গুলি মেরে, জাহাজ নৌকার লোকেদের খুলি উড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।
এমতাবস্থায় দেশের সরকার, যুদ্ধ জাহাজ পাঠিয়ে হাঙ্গামা, দাঙ্গা না থামিয়ে, চুপচাপ বসে আছে।

পত্রিকা মারফত জানতে পারলাম, এটা মায়ানমারের সীমান্তে তাদের অভ্যন্তরীণ মারামারি, কাটাকাটি, গুলি ছোড়াছুড়ি। সে গুলির কিছু এসে পড়ছে আমাদের দেশে। যেহেতু নাফ নদীতে বাংলাদেশ ও মায়ানমার উভয়ের ভাগ আছে, তাই গুলি এসে পড়াটা অস্বাভাবিক নয়। এছাড়া নদীতে জাহাজ দেখে বিপক্ষ,... ...বাকিটুকু পড়ুন

ঢাকার ২৭ নম্বর সমুদ্রবন্দর থেকে

লিখেছেন অপু তানভীর, ১৩ ই জুন, ২০২৪ রাত ১১:০০

চারটার দিকে বাসায় ফেরার কথা ছিল । তবে বৃষ্টির কারণে ঘন্টা খানেক পরেই রওয়ানা দিতে হল । যদিও তখনও বৃষ্টি বেশ ভালই পড়ছিল । আমি অন্য দিন ব্যাগে করে রেইনকোন নিয়েই বের হই কিন্তু আজকে কোন এক কারণে ব্যাগটাই নেই নি । অবশ্য সোজা বাসায় আসবো বলে একটু ভিজলে কোন সমস্যা নেই । আমার এক সময়ে অন্যতম পছন্দের কাজ ছিল বৃষ্টিতে সাইকেল নিয়ে বেরিয়ে পড়া । চুয়াডাঙ্গা থাকতে আমি বৃষ্টি হলেই সাইকেল নিয়ে বের হয়ে পড়তাম । ঢাকাতে এসেও অভ্যাসটা ছিল বটে তবে সময়ের সাথে কমে এসেছে । কাল থেকে লম্বা ছুটি শুরু হচ্ছে, মনে হল আজকে একটু ভেজাই যায়... ...বাকিটুকু পড়ুন

দরবেশ সৈয়দী মাওলা হত্যা ও সুলতানের পরিণতি

লিখেছেন সায়েমুজজ্জামান, ১৩ ই জুন, ২০২৪ রাত ১০:১৭

আজ একজন দরবেশের ঘটনা বলবো। ঘটনাটি ঐতিহাসিক জিয়া উদ্দীন বরানী তার তারিখ-ই-ফিরোজশাহী বইতে উল্লেখ করেছেন। উইকিপিডিয়াতেও ওই দরবেশের বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ নেই। ইন্টারনেটে বাংলা বা ইংরেজি ভাষায় ঘটনার বিস্তারিত নেই৷ ভারতের টেক্সটবুকে এ বিষয়ে প্রশ্ন দেখেছি।

ওই দরবেশের নাম সৈয়দী মওলা। তবে ইংরেজিতে তার নাম লেখা হয় সিদি মাওলা। সুলতান গিয়াস উদ্দীন বলবনের আমলের প্রথম দিকে পারস্য হতে দিল্লী শহরে আসেন। সৌম্য দর্শন৷ তাঁর কাজকর্ম অনেকটা অদ্ভুত ছিল। অনেক দান-খয়রাত করতেন৷ তবে জুমার দিন তিনি মসজিদে নামাজ পড়তে যেতেন না। পড়লেও বুজর্গানে দীনের চর্চিত জমাতের প্রতি তাঁর কোন আকর্ষণ ছিল না। এ কারণে শরীয়তি আলেমরা তাকে বাঁকা দৃষ্টিতে দেখতেন৷ তবে তিনি সারাক্ষণ জিকির আজকার করে সময় পার করতেন৷... ...বাকিটুকু পড়ুন

শ্রীমঙ্গল কচড়া - ১

লিখেছেন ুশঙখিচল, ১৩ ই জুন, ২০২৪ বিকাল ৫:৩০

১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২২,
রাত ১১ঃ০০ টা।

দূর থেকে ভেসে আসা বাঁশীর সুরে কেমন যেন মোহাবিষ্ট লাগছে। কি যেন একটা চেনা সুর বাজছে লোকটার বাঁশী তে। কিন্তু কিছুতেই ধরতে পারছি না। অথচ এই মূহুর্তে ওই বাঁশীর সুর ছাড়া আর কিছুই যেন নেই। চেনা, অথচ ধরতে না পারা সুরটা ভেসে যাচ্ছে দূর থেকে বহুদূরে। দূরের কোনো পাহাড়ে ধাক্কা খেয়ে ফিরে আসতে আসতেই লোক টা আবার নতুন সুর ছুড়ে দিচ্ছে শূন্যে।

দুধারে চা বাগান ঘেরা একটা ছোট্ট বাংলোয় আজ সন্ধ্যায় উঠেছি। এলাকা টা অপরিচিত নয়। কিন্তু এই জায়গাটায় আগে কখনো আসি নি। শহর বা রিসোর্ট এলাকা থেকে অনেক টা দূরে। রাতের নির্জনতা এখানে ভয়ঙ্কর।... ...বাকিটুকু পড়ুন