somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

জনগণ নিজেদের না পাল্টানো পর্যন্ত দেশের কোনো কিছুই পাল্টাবে না

২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:০৬
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটা লোক একেকটা নষ্ট, ভন্ড নীচ-নোংরা জীব। এরা ক্ষমতা না থাকলে খুব নীরিহ গোবেচারা সাজে কিন্ত ক্ষমতা পেলে চুরি-দুর্নীতি-সন্ত্রাস-এমন কোনো অপরাধ নাই যেটা করে না।
সরিষা দিয়ে ভূত তাড়ানো যায় না।
তাই এদেশ থেকে দুর্নীতি-সন্ত্রাস কোনোদিনও যাবে না।
গত ২ মাস সাইবার ক্রাইম ইউনিটে অভিযোগ করে এবং সেখানে গিয়ে নিজে চোখে দেখেছি তাদের মানুষকে হয়রানির চিত্র।
বিলাসবহুল এসি কক্ষে বসে থাকে, কিন্ত জনগণের অভিযোগের তদন্ত করে খুব কম।
কে এসবের প্রতিকার করবে?
এই ব্লগে কি নিয়ম-শৃংখলা খুব ভালো ?
কারো অশ্লীল মন্তব্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেও তো কোনো লাভ হয় না।
এক জানোয়ার যেভাবে প্রকাশ্যে ব্লগে মেয়েদের অসন্মান করেছে, সেটাও আইনের দৃষ্টিতে বড় অপরাধ।
কিন্ত বারবার অভিযোগ করার পরও কোনো ব্যাবস্থা নেয়া হয়নি।

লড়াই করতে করতে করতে আমি ক্লান্ত।

দেশ-জাতি-সমাজ পরিবর্তন করতে গিয়ে বারবার একা লড়াই করে ক্ষতিগ্রস্থ হবো আমি আর বাকীরা দূর থেকে মজা দেখবে-সেটা হতে পারে না।
প্রতিদিন শত শত লোক আমার লেখা বই এবং লেখা পড়ে।

তাদের মধ্যে কয়জন আমার দেশপ্রেম বা নীতিবোধের প্রশংসা করেছে?

গত ৩০ বছরে আমার ক্ষমতার মধ্যে সমাজ পরিবর্তনের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি।

নিজে নীতি আদর্শ মেনে,পত্রিকায় আর বইয়ে দেশের সব সমস্যা এবং সমাধানের উপায় লিখে, ভিডিও চিত্র বানিয়ে, সব বয়সীদের মাদক ও সন্ত্রাসসহ সব অপরাধ করা থেকে বিরত থাকার জন্য উপদেশ-পরামর্শ এবং তাদের বই পড়া,আত্মরক্ষা কৌশল ও শরীরচর্চা শিখিয়ে এবং এসবে উৎসাহিত করে যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। অনেক ক্ষেত্রে বড় অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নিয়েছি।
কিন্ত তার ফলাফল কি?
দেশ পরিবর্তনের জন্য আমি আর কি করতে পারি?
কতোজন এসব অনুসরণ করেছে ? বা করলেও পরিবারের থেকে শিখে আসা অনৈতিকতার শিক্ষার পরিবর্তে আমার দেয়া নৈতিকতার শিক্ষা গ্রহণ করেছে কয়জন?
বরং অনেককে দেখি ফেসবুক বিপ্লবী বলে উপহাস করতে -যাদের নিজেদেরই দেশ -জাতি -সমাজ সংস্কারে কোনো ভূমিকা নাই।

রুশো-ভলটেয়ার-দীনবন্ধু-নজরুলদের সময় ফেসবুক-ইউটিউব ছিলো না। তাই তারা শুধু বই, গল্প,কবিতা, নাটক প্রবন্ধ আর পত্রিকায় লিখে সমাজ পরিবর্তনের চেষ্টা করেছেন। তাদের সময় এসব থাকলে, এই মাধ্যমগুলিতেও তারা সরব হতেন।

আর এসব মাধ্যমে মানুষকে সৎ ও সত্যের পথে আনার চেষ্টা করেও তো খুব একটা লাভ হচ্ছে না।কারণ নীতিকথা এদেশের প্রায় কারোই ভালো লাগে না। ভালো কথা, ভালো উপদেশ,ভালো লোক- সবকিছু অসহ্য লাগে আর মধুর মতো মিষ্টি লাগে সবরকম অনৈকতা -নষ্টামি।
তাই তো যারা ১৭ কোটি লোকের একটা দেশ ধ্বংস করে দিয়েছে-সেইসব চোর-ঘুষখোর-দুর্নীতিবাজ-ঋণখেলাপি-বিদেশে টাকা পাচারকারী-মদ-মাদক-নারী আর জুয়ার ব্যবসায়ীদের ফেসবুক-পেজ এ অনুসারী লাখ লাখ। আর যারা দেশে ন্যায় প্রতিষ্ঠা করতে চায়, তাদের অনুসারী মাত্র ২/৩ হাজার।
এসব কি জনগণ না বুঝে করছে?
নায়িকা নামধারী এক পেশাদার পতিতার ফেসবুকে অনুসারী প্রায় ১ কোটি।


আমার কথা বাদ দিলাম, দেশে ন্যায় প্রতিষ্ঠার চেষ্টাকারী কোনো একটা লোকের পিছনে কি এতো লোক সমবতে হয়?

তাহলে দেশের পরিবর্তনটা কি বাতাসের উপর দিয়ে হবে?

জনগণ কি এসব না জেনে বা না বুঝে এদের সমর্থন করছে?

গ্রামের ইউনিয়ন পরিষদ থেকে শুরু করে দেশের একটা প্রতিষ্ঠান দেখান, যেখানে একজন সৎ-নীতিবান লোককে মানুষ প্রধান বানিয়েছে বা সন্মান করছে।

এদেশের লোকরা সবচেয়ে নিকৃষ্ট লোকদের নেতৃত্ব মানে , যাদের পা চাটলে কলা-মুলা পাওয়া যায়। সৎ-নীতিবান লোকরা কাউকে চুরি-দুর্নীতি-মদ-মাদক-জুয়ার ব্যবসা করতে দেবেন না।তাই এলাকা বা প্রতিষ্ঠান-কোথাও কেউ তাদের মুল্যায়ণ করে না।
একটা দেশের জনগণের যদি নীতি, আদর্শ সততা দেশপ্রেম, সৎ ব্যাক্তিদের নেতা নির্বাচিত করার মানসিকতা,আইনের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ,শ্রমের মর্যাদা -এসব যোগ্যতার কোনটাই না থাকে বরং এগুলির বিপরীত লোভ হিংসা স্বার্থথপরতা, পরশ্রীকাতরতা, পরনিন্দা, পরচর্চা এসব প্রচন্ড থাকে তাহলে সেই দেশের অবস্থা হয় বাংলাদেশের মতো।

এদেশে চুরি, ঘুষ,দুর্নীতিসহ বড় বড় সব অপরাধ করা বুদ্ধিমত্তা ও সন্মানের এবং সৎ-নীতি-আদর্শবান হওয়া বোকামি ও নির্বুদ্ধিতা হিসেবে গণ্য।

বাংলাদেশের ৯৯% লোকের প্রায় ১০০০ বছর আগেও যেমন কোনো রাষ্ট্রচিন্তা ‍ছিলো না , এখনো নাই। একটা রাষ্ট্রের নাগরিকরা যে যা ইচ্ছা তাই করতে পারে না, তাদের যে অনেক বড় দায়িত্ব থাকে-সেটা এদেশের শিক্ষিত-অশিক্ষিত কেইউ জানে না বা জানলেও মানে না।

একটা দেশ-জাতি বা সমাজ কিভাবে উন্নত বা পরিবর্তিত হয়?

যখন সেই দেশ জাতি বা সমাজের সংখ্যাগরিষ্ঠ লোকজন সৎ-নীতিবান ব্যাক্তিদের নেতা নির্বাচিত করে, এলাকা থেকে শুরু করে প্রতিটা প্রতিষ্ঠানে তাদের নেতৃত্ত্ব প্রতিষ্ঠা করে, তাদের দেয়া উন্নত চিন্তা ও মতবাদ গ্রহণ করে এবং সেগুলির প্রচলন ঘটায়-তখনই একটা দেশ-জাতি বা সমাজ উন্নত বা পরিবর্তিত হয়।

লেনিন, ক্যাষ্ট্রো, হো চি মিন, লি কুয়ান ইউ, বা মহাথির মোহাম্মদ সারাদিন চিৎকার করেও নেতা হতে পারতেন না যদি না জনগণ তাদের পিছনে এসে দাড়াতো। যারা অনলাইনে ভালো কথা শোনে না, তারা পল্টন ময়দানে দাড়িয়ে কারো ভালো কথা শুনবে বা মানবে এটা মনে করাটাই চরম নির্বুদ্ধিতা।
উন্নত দেশের লোজন নিজেরা খারাপ হলেও জেনে-শুনে কোনো খারাপ লোককে নেতা বানায় না। আর বাংলাদেশের লোকজন নিজেদের চেয়ে আরো বহুগুণ নষ্টদের নেতা নির্বাচিত করে। এ্যামেরিকার প্রতিটা রাষ্ট্রপতি সন্ত্রাসী,খুনী, অন্য দেশে হামলা ও গণহত্যাকারী।কিন্ত নিজের দেশের জনগণের জন্য তারা ভালো। তাদের কেউই চুরি-দুর্নীতি বা বিদেশে টাকা পাচার করে না।

যে দেশে ভালো লোকের দাম নাই. সেই দেশে কেনো ভালো লোকের জন্ম হবে? সবাই কি আমার মতো বোকা নাকি যে নিজের ক্ষতি করে ঘরের খেয়ে দেশের মোষ তাড়াবে, যেমন তাড়াচ্ছি আমি?

বাংলাদেশের প্রতিটা সমস্যার জন্য একমাত্র দায়ী এদেশের জনগণ।

তারা নিজেরা সব অপকর্ম করবে, জেনে-শুনে পরিবার ও দেশের বড় বড় অপরাধীদের পদলেহন করবে আর দেশ চুরি-দুর্নীতি-নারী নির্যাতন-মদ-মাদকমুক্ত হবে- এটা আশা করাই চরম নির্বুদ্ধিতা।
প্রত্যেকের ঘরে ঘরে এসব অপরাধী আছে।

সুতরাং দেশকে পাল্টাতে হলে আগে নিজের ঘরের অপরাধীদের শাস্তি দিতে হবে।

সালিশ মানি কিন্ত তালগাছ আমার -এই নোংরা গাইয়্যা নীতি মেনে চললে শুধু বক্তৃতাবাজির মতো আত্মপ্রতারণাই হবে।
দেশ থেকে দুর্নীতি বা কোনো অপরাধের অবসান হবে না।

‘‘শেষ’’


**** আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ, লেখায় নাকি আমি আমি বেশী থাকে।
যে লেখায় আমি আমি করা অপরিহার্য, সেটাতেই এই শব্দটা থাকে।
এই লেখায় দরকার ছিলো।

সর্বশেষ এডিট : ১৮ ই অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৪:০৫
১১টি মন্তব্য ১১টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

তুমি আমার দুঃখ বিলাসের একমাত্র কারণ

লিখেছেন ইসিয়াক, ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ৯:০৬



কংক্রিটের রাত্রিতে, আঁধারের ওপার হতে দাও হাতছানি।
তুমি কি আলোর পাখি?

আগুন রঙা তোমার দু পাখায় আলোর ঝলকানি,
আমি বিহ্বল হয়ে চেয়ে থাকি,
তোমার বৈচিত্রময়তায়।

আঁধার হতে আলোয় উত্তরনের চেষ্টায় আমি... ...বাকিটুকু পড়ুন

গনেশ মূর্তি-এক্সপেরিমেন্ট আর অন্ধ বিশ্বাস

লিখেছেন কলাবাগান১, ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:০৩

Repost


ল্যাবে কলকাতার হিন্দু মেয়ে গ্রাজুয়েট স্টুডেন্ড হিসাবে জয়েন করল। খুবই করিৎকর্মা ছাত্রী, প্রথম কয়েকমাস ছোট খাটো এক্সপেরিমেন্ট খুব সহজেই করা হত...আসল সমস্য শুরু হয় যখন স্যাম্পল থেকে প্রোটিন বের... ...বাকিটুকু পড়ুন

দেশে থাকা মানেই কি দেশের সেবা করা???

লিখেছেন ভুয়া মফিজ, ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:০২



ব্লগে আসি কিছু আনন্দময় সময় কাটাতে। লিখতে ভালো লাগে, তাই লেখি। পড়তে ভালো লাগে, তাই যখনই সময় পাই, ব্লগে বিভিন্ন ধরনের লেখা পড়ি। ব্লগে সময় কাটানো মানেই একধরনের কোয়ালিটি... ...বাকিটুকু পড়ুন

ছবি ব্লগ

লিখেছেন রাজীব নুর, ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ২:৩১



আহমদ ছফা আমাকে বলেছিলেন-
তুমি ভুল লোকদের হিরো বানাচ্ছ। জাতিকে এর মাশুল দিতে হবে।" আজ বুঝতে পারছি কেন তিনি বলেছিলেন। অযোগ্য, অপদার্থ, অজ্ঞাত কিছু লোক এই প্লাটফর্মটি ব্যবহার... ...বাকিটুকু পড়ুন

মানুষের জীবনচক্র

লিখেছেন চাঁদগাজী, ২৬ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:১৬



মানুষের জীবনচক্র নিয়ে আদি মানুষ থেকে শুরু করে, আজকের সায়েন্টিষ্টদের ধারণা, পর্যবেক্ষণ, ব্যাখ্যা ইত্যাদি আপনারা জানার সুযোগ পেয়েছেন; বিশ্বের শিক্ষিত অংশ বাইওলোজী, মেডিসিন, ফিজিওলোজির সাহায্যে মানুষ ও... ...বাকিটুকু পড়ুন

×