somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

এই ব্লগটি স্থগিত অথবা বাতিল করা হয়েছে

আলোচিত ব্লগ

চিলেকোঠার প্রেম- ১৩

লিখেছেন কবিতা পড়ার প্রহর, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২৫


দিন দিন শুভ্র যেন পরম নিশ্চিন্ত হয়ে পড়ছে। পরীক্ষা শেষ। পড়ালেখাও নেই, চাকুরীও নেই আর চাকুরীর জন্য তাড়াও নেই তার মাঝে। যদি বলি শুভ্র কি করবে এবার? সে বলে... ...বাকিটুকু পড়ুন

নগ্ন দেহের অপূর্ব সৌন্দর্যতা বুঝেন না! বলাৎকার বুঝেন?

লিখেছেন মুজিব রহমান, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৮:৩৫


শৈল্পিক প্রকাশের সর্বোচ্চ রূপ হিসেবে বিবেচনা করা হয় নগ্নতাকে৷ ইউরোপে অন্ধকার যুগ কাটিয়ে রেনেসাঁ নিয়ে এসেছিল আধুনিক ও সভ্য ইউরোপ৷ রেনেসাঁ যুগের শিল্পীরা দেদারছেই এঁকেছেন শৈল্পিক নগ্ন ছবি৷... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমাদের নবীকে ব্যঙ্গ করার সঠিক শাস্তি সে ফরাসি শিক্ষক কি পেয়েছে?

লিখেছেন নূর আলম হিরণ, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৯:৫৩



গত কয়েকদিন আগে ফ্রান্সে কি হয়েছিল? একজন শিক্ষক ক্লাসে আমাদের নবীর ব্যঙ্গচিত্র দেখিয়েছিলেন, বলা হয়েছিল তার উদ্দেশ্যে ছিল বাকস্বাধীনতা ও ব্যক্তিস্বাধীনতার বিষয়ে বুঝানো। এটার পর এক মুসলিম যুবক তার ধর্মীয়... ...বাকিটুকু পড়ুন

কবি ও পাঠক

লিখেছেন সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১১:৩১

কবিদের কাজ কবিরা করেন
কবিতা লেখেন তাই
ভেতরে হয়ত মানিক রতন
কিবা ধুলোবালিছাই

জহু্রি চেনেন জহর, তেমনি
সোনার পাঠক হলে
ধুলোবালিছাই ছড়ানো পথেও
মাটি ফুঁড়ে সোনা ফলে।

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

***

স্বরচিত কবিতাটির ছন্দ-বিশ্লেষণ

শুরুতেই সংক্ষেপে ছন্দের প্রকারভেদ জেনে নিই। ছন্দ... ...বাকিটুকু পড়ুন

হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রিয় খাবার সমূহ

লিখেছেন রাজীব নুর, ২৮ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ৩:৩৪



আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)।
প্রিয় নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) যেসব খাবার গ্রহণ করেছেন, তা ছিল সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসম্মত ও পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। নবীজি (সা.) মোরগ, লাউ, জলপাই, সামুদ্রিক মাছ,... ...বাকিটুকু পড়ুন

নির্বাচিত ব্লগ

আমার তোলা চিত্র

লিখেছেন সামিয়া, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:৩৪



যে কোন সৃষ্টিশীল কাজেই আনন্দ, একটা গল্প লেখা, একটা কিছু বানানো, ছবি আঁকা, ছবি তোলা অথবা কবিতা লেখা, আচ্ছা আপনি কি কবিতা লিখে আনন্দ পান?
আমি ছবি তুলে আনন্দ পাই প্রচুর কিন্তু আমার আয়তন পরিধি পরিবেশ পরিস্থিতি সীমিত তাই ছবি তুলে বড় ধরণের কোন কারিশমা আজ অবধি দেখাতে পারিনাই , যে ভাবে আমাদের দেশের অনেক ফটোগ্রাফাররা তাদের কাজের মাধ্যমে এগিয়ে গিয়েছেন, ওসব ছবি দেখলে মনেহয় আহারে এই রকম একটা ছবি যদি তুলতে পারতাম! আমার যদি ড্রোন থাকতো! কিংবা আমি ও যদি রাশিয়ার বৈকাল লেক এর পাথরের রিফ্লেকসনের সবুজ আলো তুলতে পারতাম! যদি আইসল্যান্ড এর বরফের পানির দেয়াল, অথবা কলম্বিয়ার টাটাচোয়া... ...বাকিটুকু পড়ুন

খুচরা সংস্কৃতি: আইডি

লিখেছেন মানস চৌধুরী, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ২:১১

আইডি কার্ড আমি বানাতেই চেয়েছিলাম। যদিও ইতোমধ্যে আইডি কার্ড পেয়েছেন এমন দু’চারজন যখন তাঁদের কার্ড দেখাতে গেছেন, বা দেখতে চেয়েছি, কাউকেই বিশেষ উদ্দীপ্ত দেখিনি। এরকম গুরুতর একটা জাতীয় পর্যায়ের অর্জনে যে ধরনের উদ্ভাসিত তাঁদের থাকবার কথা, খুব একটা কাউকেই সেরকম পর্যায়ে খুঁজে পাইনি। পরে নানাবিধ গবেষণা শেষে আমি নিশ্চিত হতে পেরেছিলাম যে এই অভূতপূর্ব রাষ্ট্রীয় দলিলটি পেয়ে তাঁরা যে মাত্রারই খুশি হয়ে থাকুন না কেন, কার্ডের উপর মুদ্রিত তাঁদের স্বীয় স্বীয় ছবিখানিই সকলের হতোদ্যম হবার মুখ্য কারণ। বিজ্ঞান ও উন্নতির এহেন হৈচৈয়ের কালে লোকজনের চেহারা ওই কার্ডে এরকম পীড়িত, রুগ্ন ও ভ্যাবাচ্যাকা হবার কোনো ব্যাখ্যা মুখের মালিকদের পক্ষে ছিল না।... ...বাকিটুকু পড়ুন

আপনি কেন মাদ্রাসায় লেখাপড়া করেন নি!

লিখেছেন রাজীব নুর, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১:৪৭



বিকেলে বিভিন্ন এলাকায় হাঁটতে যাই।
যে এলাকাতেই যাই একটা করে মাদ্রাসা চোখে পড়ে। প্রতিটা মাদ্রাসাতেই ছাত্রদের অভাব নাই। আমাদের বাসার কাছেও একটা মাদ্রাসা আছে ফালুর। মাদ্রাসায় কোনো ধনী লোকদের ছেলেমেয়েরা পড়ে না। মাদ্রাসায় খরচ কম। তাছাড়া এটা আল্লাহর রাস্তা। বেহেশত পাওয়ার সম্ভবনা আছে। মূর্খ ও দরিদ্র বাবা মা সন্তানদের হাফেজ, ইমাম বা মোয়াজ্জেম তৈরি করাই মূল লক্ষ্য। মাদ্রাসাতে লেখাপড়া কি ডাক্তার, ইঞ্জিয়ার, পাইলট, বিজ্ঞানী, হওয়া যাউ কিনা আমি জানি না। মাদ্রাসা থেকে একজন ছেলে লেখাপড়া শেষ করে কোথায় চাকরি পাবে তাও আমি জানি না। আপনার কি মনে হয় না(?) মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থার‌ মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ ছেলেমেয়েদের দেশের উৎপাদনমুখী কর্মকাণ্ড... ...বাকিটুকু পড়ুন

এই আমি আর নেই সেই আমি!!!

লিখেছেন ভুয়া মফিজ, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১:১৫



আমার একটা অভ্যাস আছে। বদ অভ্যাসও বলতে পারেন। সেটা হলো, সুযোগ পেলে আমার পুরানো লেখাগুলোতে মাঝে মধ্যে চোখ বুলানো। তবে, লেখাতে যতোটা মনোযোগ দেই, তার চাইতে বেশী মনোযোগ দিয়ে পড়ি সেই লেখাকে ঘিরে মন্তব্যগুলিকে। অনেকদিন পর পড়লে নতুনভাবে পড়ার আনন্দ পাই। কিছুদিন আগে তেমনিভাবে একটা লেখা আমার কাব্যভীতিঃ কেন আমি এমন হইলাম পড়তে গিয়ে একটা মন্তব্যে আমার চোখ আটকে গেলো। মন্তব্যটা করেছিলেন, ব্লগের এবং আমার অন্যতম প্রিয় ব্লগার পদাতিক চৌধুরি।



পড়ে ভাবলাম, উনার মন্তব্যকে যেহেতু আমি একেবারেই রুল আউট করি নাই; তাই দেয়া যাক না হয় গোটা দুয়েক কবিতা!!! ব্লগের প্রিয় ব্লগারদেরও জানার অধিকার আছে, ঠিক কি ধরনের কবিতা... ...বাকিটুকু পড়ুন

চলো বয়কট করি

লিখেছেন আবীর চৌধুরী, ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:১৫

কয়দিন পরপর বিভিন্ন দেশের উপ্রে বয়কট ট্রেন্ড চালু হলে এই কূপমণ্ডূক জাতিটা বুঝতো, বাংলাদেশ কতটা পরনির্ভর, কতটা ভঙ্গুর।
একজন ক্যারিকেচারের ক্যাচাল পাকিয়ে, নিজের কল্লা বিসর্জন দিয়ে, ৬০০০ কিলোমিটার দূরের একটা দেশকে শিখিয়ে দিয়ে গেল, ফরাসি আর ফারসি এক না।
শিখিয়ে দিয়ে গেল, ৫ ওয়াক্ত নামাজ না পড়ে, সুদ খেয়ে জীবনধারণ করে, প্রতিনিয়ত গীবত করে, চুরিচামারি বেইমানী দুর্নীতির প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ ভাগীদার হওয়ার পরেও, শুধু কার্টুন আঁকার বিরোধিতা করে নিজের ধর্মানুভূতি প্রমাণ করা যায়।
জানিয়ে দিয়ে গেল, বাংলাদেশের সাথে ফ্রান্সের মত একটা ঐতিহাসিক ও গ্লোবাল সুপার পাওয়ারের অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক সম্পর্ক কেমন, কতটা গভীর, কতটা বিস্তৃত, কতটা শক্তিশালী।
তবে, এটা এখনও বুঝাতে পারলো না, "চিলে কান নিয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন