somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

"আমাদের দেশটা স্বপ্নপুরী" - আসুন একনজরে দেখি আমাদের স্বপ্নপুরীর সর্বশেষ অবস্থা।

২৯ শে অক্টোবর, ২০২৩ দুপুর ১:০৭
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


ছবি - istockphoto.com

"আমাদের দেশটা স্বপ্নপুরী
সাথী মোদের ফুলপরী
ফুলপরী লাল পরী লাল পরী নীল পরী
সবার সাথে ভাব করি " -
বিখ্যাত এ গানটির গীতিকার - মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান, সুরকার - সত্য সাহা, যাহা গেয়ে বিখ্যাত হয়ে আছেন আবিদা সুলতানা যুগ যুগ ধরে।




ছবি - istockphoto.com

এ গানের কথার মত আসলেই নানা কারনে আমাদের দেশটা স্বপ্নপুরীই। সুজলা -সুফলা, শস্য শ্যামলা,পাহাড়-নদী-সাগর বেষ্ঠিত এই স্বপ্নপুরী বড়ই বৈচিত্রময়। চমতকার ভূপ্রকৃতির মত এই স্বপ্নপুরীর মানুষগুলোও প্রতিনিয়ত অভাব- প্রাকৃতিক দূর্যোগ সহ নানা রকম দুঃখ-বেদনা ও সীমাবদ্ধতার মাঝেও স্বপ্ন দেখে এবং ছোট খাট যে কোন উপলক্ষেই আনন্দের সাথে বাঁচতে চায়, যেই ধারা যুগ যুগ ধরে চলে আসছে। সেই স্বপ্নপুরীর মানুষগুলিই গত কয়েক বছরে যেন কেমন হয়ে গেছে। কেউ কাউকে সহ্য করতে পারছেনা,কেউ কারো দুঃখে দুখী হচছেনা এবং হাসতেও ভূলে যাচছে নানা ঘাত প্রতিঘাতে এবং আটকে আছে নানা সমস্যার বেড়াজালে। তার সাথে সাথে স্বপ্নপুরীর মানুষগুলি অনুভূতিহীন রোবটের মত দেখছে স্বপ্নপুরীতে ঘটে যাওয়া সাম্প্রতিক কিছু ঘটনাবলীকে। যেখানে কখনো গ্রীষ্মের প্রচন্ড গরমের সাথে সাথে কালবৈশাখীর ঘনকালো মেঘের মত ঝড়ো হাওয়ার দেখা মিলে ত ,পরক্ষণেই হয়ত দেখা মিলে শীতের দুপুরের কুয়াশার চাদর ভেদ করে বেরিয়ে আসা নরম সূর্যালোকের। কখনো হয়ত হতাশায় নিমজ্জিত হচছে আবার কখনো জেগে উঠছে আশাবাদী হয়ে। এভাবেই চলছে আমাদের স্বপ্নপুরী।

এতসব কিছুর মাঝেই আসুন দেখি বর্তমানে আমাদের স্বপ্নপুরী/সোনার বাংলা :( ) কোথায় আটকে আছে ?


ছবি - bbc.com

১। স্বপ্নপুরীর উন্নয়ন-অগ্রগতি এবং পরবতী নির্বাচন পাসের গ্যারান্টি হলো সেলফি - স্বপ্নপুরী/সোনার বাংলার উন্নয়ন-অগ্রগতি আটকে আছে এক সেলফিতে। সম্প্রতি ভারতে জি২০ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। যদিও বাংলাদেশ জি২০ এর সদস্য নয় তথাপি নানা কারনে এই সম্মেলনে অতিথি হিসেবে যোগ দেওয়ার জন্য ১১টি দেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে ভারত সরকার যেখানে বাংলাদেশও ছিল এবং সেই সম্মেলনে বাংলাদেশ থেকে শেখ হাসিনা যোগদান করেন। সেই সম্মেলনে অনানুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাক্ষাত শেখ হাসিনার সাক্ষাত হয় এবং তাহার কন্যা পুতুল সহ একটি ছবি তথা সেলফি তোলা হয়। এই ছবিই বর্তমানে বাংলাদেশের রাজনীতিতে প্রধান আলোচনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত কয়েকমাস যাবত যুক্তরাষ্ট্র এবং পশ্চিমা দেশগুলো একটি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য বাংলাদেশ সরকারকে অব্যাহতভাবে চাপ দিয়ে যাচ্ছে এবং নানা ধরনের বিধি-নিষেধ আরোপের হুমকিও দিচছে। এরই প্রেক্ষাপটে এ সেলফিতে তথা শেখ হাসিনার সাথে জো বাইডেনের হাস্যোজ্জ্বল ছবিকে 'সম্পর্ক উন্নয়নের' বার্তা হিসেবে দেখাতে চাচছেন স্বপ্নপুরীর সরকার ও তাহার দল আওয়ামীলীগ। তবে বিরোধদল ও নিরপেক্ষগণ একটি সম্মেলনে বাইডেনের সাথে অনানুষ্ঠানিক সাক্ষাত ও ছবি তোলা আদৌ বাংলাদেশের আগামী নির্বাচনকে ঘিরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নীতি পরিবর্তনের কোনো ইঙ্গিত বহন করে কী-না সে প্রশ্নও তুলছেন। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর বিশ্বনেতাদের (আমেরিকার রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন / ঋষি সুনাক) সঙ্গে আন্তরিকতার ছবি কি সেই অবস্থান পরিবর্তনের কোনো ইঙ্গিত বহন করে? - এ প্রশ্নের জবাবে যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় স্টেট ইউনিভার্সিটির সরকার ও রাজনীতি বিভাগের ডিস্টিংগুইশড প্রফেসর আলী রীয়াজ বলেন, " এই সেলফিতে তিনি পরিবর্তনের কোনো ইঙ্গিত দেখছেন না"। অথচ ক্ষমতাশীন দল তাদের তাদের নেতাদের মতে,এই সেলফিতে মুগ্ধ পুরো দুনিয়া এবং যাতে মিশে আছে তাদের মধুর কিছু স্মৃতি এবং সেই সেলফি স্মৃতিতে ভর করেই নির্বাচনী বৈতরণী পার হবার স্বপ্নে বিভোর স্বপ্নপুরী/সোনার বাংলার শাসকেরা।যেখানে জনগনের ভোটাধিকার নয় বরং আমেরিকা-ভারতের সাথে তলে তলের ফয়সালার সম্পর্ককেই বেশী গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়।

লিংক -
> বাইডেনের সাথে সেলফি ও মাখোঁ'র ঢাকা সফর - নির্বাচন নিয়ে পশ্চিমা চাপ কমবে? Click This Link
> বাইডেনের সঙ্গে শেখ হাসিনার সেলফি বিএনপির ভালো লাগেনি: কাদের - Click This Link
>বাইডেনের সাথে সেলফি দেখে বিএনপির চোখ-মুখ শুকিয়ে গেছে : কাদের - https://inews.zoombangla.com/
> বাইডেন খুবই উচ্ছ্বসিত ছিলেন: সেলফি প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী - https://www.ittefaq.com.bd/658925/
>বাইডেনের সেলফিতে পরিস্থিতি বদলাবে না - https://mzamin.com/news.php?news=74343


ছবি - agamirsomoy.com

২। স্বপ্নপুরীর ক্ষমতার রাজনীতি চলছে দেবর-ভাবীর উপর ভর করে - স্বপ্নপুরীর রাজা নির্বাচন প্রক্রিয়া তথা রাজনীতি আটকে আছে দেবর-ভাবির জাতীয় পার্টি তথা গৃহপালিত বিরোধী দলে, যারা ভোটে নয় ভাগে বিশ্বাসী। ক্ষমতাশীন দল তাদেরকে নিয়ে ইদুর-বিড়াল খেলে ও ক্ষমতার উছিষ্ঠতার কিছু ভাগ দিয়ে টিকে আছে/থাকতে চাচছে ক্ষমতার মসনদে গত ১ যুগের অধিক সময়ে এবং সামনের বারও। এদিকে দেশের প্রধান বিরোধী দলও বাকী সবার সমর্থন পেলেও শুধু দেবর-ভাবির সমর্থনের অভাবে সফল হয়েও হতে পারছেনা সরকার বিরোধী আন্দোলনে। কাজেই স্বপ্নপুরীর রাজনীতির রাজা তৈরীর ক্ষমতা তথা রাজনীতি আটকে আছে দেবর-ভাবির নিকট আর দেবর-ভাবী আটকে আছেন আওয়ামীলীগ তথা শেখ হাসিনার সরকারের নিকট। দেবর-ভাবী সেভাবেই চলেন যেভাবে শেখ হাসিনা তথা সরকার চান, যেমনটা না চাইলেও চলতে বাধ্য হয়েছিলেন ভাবীর স্বামী ও ভাইয়ের ভাই (এরশাদ) তার সমগ্র জীবদ্দশায়।

লিংক -

> সংসদে কতটা বিরোধী দল হতে পেরেছে জাতীয় পার্টি? - https://www.bbc.com/bengali/news-45943704
> আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টির কী হবে - Click This Link
> নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টিকে নিয়ে নতুন 'হিসাব-নিকাশ' - Click This Link
> পুরোনো ‘গুমর’ নতুন করে ফাঁস করল জাতীয় পার্টি - https://www.prothomalo.com/politics/g8yn7vzs2b
> তিন কারণে জাতীয় পার্টিতে ফের বিরোধ দেবর-ভাবির - Click This Link


ছবি - thefinancialexpress.com

৩। স্বপ্নপুরীর মিডিয়া/সংবাদ চলছে পরিমনিতে ভর করে - স্বপ্নপুরীর মিডিয়া / সংবাদ আটকে আছে এক পরী মনিতে, কারন অন্য কোন বিষয়ে তাদের বলার কিছু নেই কিংবা বলতে পারছেনা পরিবেশ-পরিস্থিতির কারনে। যার জন্য স্বপ্নপুরীতে পরী সংবাদ সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ যিনি পেশাগতভাবে একজন সিনেমাকর্মী (নায়িকা)। সাধারনত নায়ক-নায়িকা তথা সিনেমা কর্মীরা আলোচনায় থাকেন তাদের কর্তৃক অভিনীত ছবির জন্য তবে আমাদের আলোচ্য তিনি (পরিমনি) সারা বছর আলোচনায় থাকেন তার অভিনীত সিনেমার জন্য নয় বরং তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে। এমনিতে স্বপ্নপুরীতে কোনো ধরনের সমস্যা নাই, কষ্ট নাই :( শুধু সুখ আর সুখ।আর সেই সুখের কারনে নেই কোন বিষয়ে কারো কিছু বলার অধিকার, না সাধারন মানুষ কিংবা মিডিয়ার। তাই বলে মানুষ কী কিছু বলবে না? কিংবা মিডিয়া কোন বিষয় নিয়ে লিখবেনা ? তাহলে সাধারন মানুষ বাঁচবে কিভাবে আর মিডিয়া চলবে কিভাবে ? আর তাইতো কোন সিনেমা না করেও পরিমনি সবসময় মিডিয়ার আলোচনায় থাকেন। পরীমণি কখন কী করলেন, কখন তাঁর স্বামী রাজ বাড়ি ছাড়লেন আবার কখন বাড়ি ফিরে প্রমাণ করলেন তিনি কতটা বউভক্ত কিংবা কত জনের সাথে তার সম্পর্ক,কবে তাহার জন্মদিন কিংবা কেন সে সেই জন্মদিন পালন করেনি এসবেই আটকে আছে স্বপ্নপুরীর মিডিয়া/সংবাদ ।

> পরীমনি সম্পর্কিত সর্বশেষ খবর - https://www.newsbangla24.com/searchbytag/
> পরীমনি - https://www.prothomalo.com/topic/
> প্রধানমন্ত্রীর কাছে ধর্ষণের বিচার চাইলেন পরীমনি- Click This Link
> পরী মনির ধর্ষণ মামলায় নাসির-অমির বিচার শুরু - https://www.probashbangla.com.au/?p=163848
> পরী মনিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গ্রহণ - Click This Link
>‘জীবনে আজাইরাদের যত ঝেড়ে ফেলা যায় ততই ভালো’ - Click This Link


ছবি - dainikbangla.com.bd


৪। স্বপ্নপুরীর দ্রব্যমূল্য আটকে আছে আলু-পেয়াজ,মুরগী-ডিম ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে - গত দুই বছর যাবত ধরে চলা রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব থেকে মোটামুটি সারা দুনিয়া বেরিয়ে আসতে পারলেও (হাল আমলে দেউলিয়া দেশ শ্রীলংকাও) স্বপ্নপুরী দুই বছর পর এখনো আটকে আছে সেই যুদ্ধে। তার ফলে সেখানে কমছেনা দ্রব্যমূল্যের, যদিও মানুষ এখন স্বপ্ন দেখা বাদ দিয়ে শুধু স্মৃতি নিয়ে বেঁচে থাকতে চায় যে, "অতীতে কোন এক সময় আমরাও কম দামে জিনিষ কিনেছিলাম "। এদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের সাথে এখন যোগ হয়েছে নিরিহ মুরগী-ডিম যারা কিনা স্বপ্নপুরীর দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী। সাথে সাথে কিছুদিন পর পর সেই দাম বাড়ার কারনের সাথে যোগ হয় কাঁচা মরিচ ,চাল-আলু-পেয়াজও এবং যে কোন জিনিষের মূল্যবৃদ্ধির সাথে সাথে এর দায়িত্বশীল মন্ত্রীরা হাজির হন মূল্যবৃদ্ধির পিছনের কারন ব্যাখ্যা করতে এবং সরকার প্রধান তথা প্রধানমন্ত্রী হাজির হন তাহার চিরাচরিত আশার বাণীর সাথে সাথে নতুন নতুন এক রেসিপি নিয়ে।

> ডিমের দাম মগডালে কিসে আটকায়, তাঁদের চেয়ার কিসে আটকে থাকে - Click This Link
> দ্রব্যমূল্য ও সিন্ডিকেট নিয়ে সংসদে তোপের মুখে বাণিজ্যমন্ত্রী - Click This Link
> রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ - যেসব সমস্যায় ভুগছে বাংলাদেশ - https://www.dhakapost.com/international/175846
> কৃষিমন্ত্রীর ‘অসহায়ত্ব’, পেঁয়াজ ও আলুর দাম নিয়ন্ত্রণ করতে পারছি না - Click This Link
> নিয়ন্ত্রণে নেই ডিমের বাজার - https://www.prothomalo.com/business/i3ehqb2gs9
> ডিমের মূল্য নিয়ন্ত্রণে ভিন্ন অবস্থানে দুই মন্ত্রণালয় - Click This Link
> নিত্যপণ্যের দাম ঠিক করা নিয়ে আর কত কারসাজি? - Click This Link
> চলতি সপ্তাহেই আমদানি করা ডিম দেশে আসবে: বাণিজ্যমন্ত্রী - Click This Link


ছবি - thedailycampus.com


ছবি - newsbangla24.com

৫। স্বপ্নপুরীর পুলিশ আটকে গেছে ছাত্রলীগে - আমাদের এই স্বপ্নপুরীতে সরকারী দলের সবার সঙ্গে পুলিশের খুব ভাব। আর তাইতো গত ১৫ বছর ধরে পুলিশ এবং হেলমেট বাহিনী ( দূর্মোখেরা বলেন হেলমেট বাহিনী রক্ষীবাহিনীর আধুনিক সংস্করণ তথা ক্ষমতাশীন দলের ছাত্র সংগঠন) মিলে-মিশে হামলা - মামলায় কতশত মায়ের বুক খালি করেছে,কত শত বিরোধী রাজনৈতিক দলের সদস্যকে পিটিয়ে পা ভেঙে দিয়েছে, কোমর ভেঙে দিয়েছে, মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে, তার কোন হিসাব কিংবা বিচার হয়নি কিংবা তারা যখন দিনের পর দিন হাসপাতালে ছিল তখন একটা দিনের জন্যও পুলিশ প্রশাসন বা কোনো কর্মকর্তা তাদের দেখতে যান নাই। কোটা সংস্কার আন্দোলন নিয়ে কিংবা আরো কয়েকবার বহু সাধারন ছাত্র এমনকি ডাকসু ভিপি নুরুকে পিটিয়ে তক্তা করার পরও পুলিশ মামলাও নেয়নি। সেই মহা ক্ষমতাশালী পুলিশ এখন ছাত্রলীগের দুইজনকে পিটিয়ে এখন নিজেদের ফাঁদে নিজেরা আটকে গেছে এবং তাদেরকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে গেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক । আহারে ফাদ ------ :(( ক্ষমতার ফাদ। আর সেই ফাঁদ থেকে বের হতে, ঘটনা-রটনা আর ছাত্রলীগ বনাম পুলিশের দোটানা মিলিয়ে অজস্র গল্প তৈরি হয়ে গেছে ইত্যবসরে আমাদের স্বপ্নপুরীতে এবং স্বপ্নপুরীর মানুষ পেয়ে গেছে ভবিষ্যতের জমজমাট স্মৃতির এক উপাদান। যা নিয়ে প্রতিদিনই তৈরী হচছে একটি করে মজাদার সরস গল্প।

ছাত্রলীগ বনাম পুলিশ-প্রশাসন ও তাদের মধ্যে তৈরি হওয়া জটিলতা ও ছাত্রলীগ নেতার দাঁত ভাঙার অপরাধের শাস্তি পুলিশকে পেতে দেখে যে প্রশ্ন পুরোনো স্মৃতি থেকে জেগে উঠে, " এই যে একমাস আগেও কিংবা বিগত ১৫ বছর যাবত তুচছ কারনে কিংবা শুধু বিরোধী রাজনীতি করার অপরাধে পুলিশ যাদের মেরেছে ,তাদের বিচার কেন হয়নি কিংবা কবে হবে''? নাকি তারা মানুষ নয় (কারন - দেশে মনে হয় শুধু একদল ও তাদের সমর্থকরাই মানুষ বাকি সব গিনিপিগ)। পুলিশ যে এই প্রথম কাউকে মেরেছে, ব্যাপারটা এমন নয়। সাধারণভাবে পুলিশ হওয়ার কথা জনগনের বন্ধু যদিও বাংলাদেশে পুলিশের চরিত্র কিছুটা ভিন্ন। গত ১৪-১৫ বছরে পুলিশ বিরোধী মতের কত হাজার মানুষকে মেরেছে, পিটিয়েছে তার কোনো ইয়ত্তা নেই। কিন্তু কোন পুলিশের বরখাস্ত হওয়াতো দূরের কথা, প্রত্যাহার বা বদলিও খুব একটা হয়নি বরং বিরোধী দলকে দমনের পুরস্কার হিসেবে প্রমোশন হয়েছে, পদক মিলেছে। কিন্তু হঠাৎ এই একটি ঘটনা নিয়ে এত তোলপাড় কেন? কারণ এবার আক্রমণটা এসেছে নিজেদের দিকে। ধরুন - একই ঘটনায় আক্রান্তরা যদি ছাত্রলীগ না হয়ে ছাত্রদল হতো, তাহলেও কি এডিসি হারুনকে বরখাস্ত হতে হতো?

> ছাত্রলীগ, পুলিশ, প্রশাসন - কার তদন্ত কে করবে? - https://www.banglatribune.com/columns/816675/
> ছাত্রলীগ নেতাকে নির্যাতনকারী পুলিশ সদস্যরা ছিলেন মুখোশধারী-https://www.kalbela.com/national/22558
>ছাত্রলীগের দুই নেতাকে থানায় নিয়ে পেটালেন এডিসি হারুন - Click This Link
>আহত ছাত্রলীগ নেতাকে দেখতে হাসপাতালে ডিএমপি কমিশনার - Click This Link
>থানায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ২ নেতাকে নির্যাতন, যা বললেন ডিএমপি কমিশনার- https://www.jugantor.com/capital/716521/
> ফের বেপরোয়া ছাত্রলীগ, অপরাধীদের শাস্তি কেবল বহিস্কার - Click This Link


ছবি - gettyimages.ae

৫। স্বপ্নপুরীর সবচেয়ে ক্ষমতাশালী (শেখ হাসিনা ও ওবায়দুল কাদের) দুই জনের কিছু অবিস্মরণীয় উক্তি -

শেখ হাসিনা - বাংলাদেশ তথা স্বপ্নপুরীর সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ও দীর্ঘস্থায়ী শাসক এবং ওবায়দুল কাদের তাহার অনেক সুযোগ্য সেনাপতিদের মাঝের শীর্ষস্থানীয় একজন,যাহার স্থান শেখ হাসিনার পরেই। তাহারা উভয়ে মিলে দেশ শাসনে যেমন সফল, তেমনি অনন্য নজির স্থাপন করেছেন অহরহ তাদের বলা নানা কথা (উক্তির) কারনেও। তাহারা উভয়েই প্রতিদিনই এমনসব কথা বলেন, যা না দেশে- না বিদেশে তাদের মত দায়িত্বশীল পদে থেকে কেউ অতীতে বলেছে-না ভবিষ্যতে কেউ বলবে বলে মনে হয়। আর তারা অনন্য কথা বলাতেও রস-কস-সিংগারা-বুলবুলির মত।

একটি দেশের সরকার দেশের শতভাগ জনগনের। যারা তাদের ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে সরকার যেমন তাদের, ঠিক তেমনি তাদের যারা ভোট দেয়নি সরকার তাদেরও। কারন - এটাই গণতন্ত্র এবং এর মূল সূর। দেশ গঠনে সরকারের পক্ষ-বিপক্ষ সবারই অবদান থাকে। শতভাগ সমর্থন কোন শাসকের / কারো কাম্য হওয়া উচিত নয় কিংবা শুধু রাজনৈতিক বিরোধীতার কারনে কাউকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ-হয়রানি কোনভাবেই গণতন্ত্রে সমর্থন করেনা।আবার সরকারের বিরোধীতা কিংবা খবরের কাগজে সরকারের কাজের সমালোচনা মানেই দেশদ্রোহিতা নয়-এটাও উনারা মানতে চায়না।

পদ্মা সেতু বাংলাদেশের গর্ব , যা কোন প্রকার বৈদেশিক সাহায্য-ঋন কিংবা অনুদান ছাড়া দেশের আপামর জনগনের (দল-মত নির্বিশেষে রিকশাওয়ালা-মজুর-শ্রমিক-কৃষক সহ সকল জনগনেরই তাতে অর্থনৈতিক অংশগ্রহণ আছে - এমন না যে তাতে শুধু আওয়ামী সমর্থকদের থেকেই টাকা নেওয়া হয়েছে বা তারাই শুধু টাকা দিয়েছে এ সেতু বানানোর জন্য) অংশগ্রহনে নির্মিত হয়েছে দেশের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী শাসক মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অদম্য ইচছা ও আগ্রহের সমন্বয়ের ফলে। সেই সেতুকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ( ১৮ মে ২০২২ শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলীয় কার্যালয়ে এ আলোচনা সভায়) বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া,শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ডঃ মুহাম্মদ ইউনূস ও দ্য ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহ্ফুজ আনামেকে জড়িয়ে যেসব কথা বলেছেন তা তার এ মহান অর্জনকে অনেকখানিই ম্লান করে দিয়েছে । চলতি মেয়াদসহ তাহার একটানা ১৫ বছরের শাসনকালে আমাদের স্বপ্নপুরী নানা রকম সীমাবদ্ধতার মাঝেও কিছু কিছু জায়গায় অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছে এ মিথ্যা নয়। দেশ এগিয়ে চলছে নানা সূচকে এবং তাই দেশের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দল এখন আওয়ামীলীগ এবং এর প্রধান শেখ হাসিনার সাথে বর্তমানে দেশ কিংবা বিদেশে কারোর সাথে কোন তুলনা করার কোন সুযোগ নেই। তিনি নিজেকে ওয়ান ম্যান আর্মি শো এর মত ইতিমধ্যেই এক অনন্য উচচতায় নিয়ে গেছেন যেখানে তার ধারে-কাছে কেউ নেই,না রাজনীতির ময়দানে ও না ক্ষমতার মঞ্চে । শেখ হাসিনার সমান কিংবা বিকল্প না তার দলে আছে না বাকীদের নিকট আছে। সেই প্রধানমন্ত্রীই মাঝে মাঝে এমনসব কথা বলেন কিংবা বিরোধীদের প্রতি এমনসব আচরন করেন যা এককথায় অনাকাংখিত। আসুন দেখি মাননীয়া প্রধানমন্ত্রীর কিছু অবিস্মরণীয় উক্তি -


>পদ্মা সেতুতে নিয়ে খালেদাকে টুস করে ফেলে দেওয়া উচিত : প্রধানমন্ত্রী - Click This Link
> বিদেশে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার দাবি প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা - বয়স ৮০ বছর, সময় হয়ে গেছে, এত কান্নাকাটি করে তো লাভ নেই ।প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, যেদিন সুযোগ পাব ক্যান্টনমেন্ট থেকে বের করে দেবো । স্যাংশন নিয়ে মাথা ঘামাবেন না বেশি স্যাংশন দিলে আমরাও দিয়ে দেবো। রোজই শুনি মরে মরে - Click This Link
>খালেদা জিয়ার চিকিৎসা প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা - সময় হয়ে গেছে, এতো কান্নাকাটি করে তো লাভ নেই - Click This Link
>বেশি কথা বললে, সব বন্ধ করে দেব: প্রধানমন্ত্রী - https://www.ittefaq.com.bd/661991/
>ইউনূসকে চুবানি দিয়ে পদ্মা সেতুতে তোলা, আর খালেদাকে টুস করে নদীতে ফেলা উচিত: প্রধানমন্ত্রী - https://www.ittefaq.com.bd/597633/
> খালেদা জিয়ার বয়সতো আশির ওপরে, মৃত্যুর সময় হয়ে গেছে: প্রধানমন্ত্রী - https://www.ittefaq.com.bd/661637/


ছবি - dailyinqilab.com


ছবি - dainikbangla.com.bd

শেখ হাসিনার অনেক সেনাপতির মাঝে সবচেয়ে সুযোগ্য সেনাপতি ওবায়দুল কাদের যিনি এখন দেশের দ্বিতীয় শীর্ষস্থানীয় এবং সকল বিষয়ে শেখ হাসিনা থেকে এক ধাপ এগিয়ে এবং সূর্য থেকে বালির উত্তাপ বেশীর মত থেকে প্রতিদন নিরলসভাবে (কথা কিংবা কাজে) যোগ্য সাহচর্য দিয়ে যাচছেন শেখ হাসিনাকে।তাদের উভয়ের জুটিতে বিগত ১৫ বছরে আমাদের স্বপ্নপুরী নানা রকম সীমাবদ্ধতার মাঝেও কিছু কিছু জায়গায় অভূতপূর্ব উন্নয়ন করেছে এ মিথ্যা নয়। আর তাইতো আমাদের স্বপ্নপুরী প্রবেশ করতে যাচছে পারমানবিক যুগে (রাশিয়ার সহযোগীতায় পারমানবিক বিদ্যুত কেন্দ্র চালু হতে যাচছে পাবনার রূপপুরে ) তবে বিদ্যুত কেন্দ্রে ব্যবহারের আগেই শুরু হয়ে গেছে পরমানুর ব্যবহার যা আমাদের কাজের চেয়ে কথায়ই বেশী পরিলক্ষিত হচছে। তাদের কথায় যা পরিলক্ষিত হয় তা আধুনিক (পারমানবিক) যুগের নয় বরং প্রাগৈতিহাসিক যুগের। আর তাইতো বিদ্যুত উৎপাদনের জন্য আনিত ইউরেনিয়াম বিদ্যুত উৎপাদনে ব্যবহারের পূর্বেই দেশের দ্বিতীয় ক্ষমতাশালী (ওবায়দুল কাদের - বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ) ব্যক্তি সেই ইউরেনিয়াম রাজনৈতিক বিরোধীদের শায়েস্তা করার কাজে ব্যবহারের হুমকি সহ প্রতিনিয়ত নানা অবিস্মরণীয় উক্তি করে যাচছেন। আসুন দেখি উনার কিছু অবিস্মরণীয় উক্তি -


>। বেশি লাফালাফি করলে ফখরুল-আব্বাসদের মাথায় ইউরেনিয়াম ঢেলে দেব: কাদের , লিংক - Click This Link , https://www.jugantor.com/politics/726933/
>তলে তলে আমেরিকার সঙ্গে আপস হয়ে গেছে: ওবায়দুল কাদের - https://www.ittefaq.com.bd/661642/
> তলে তলে আপস হয়ে গেছে। দিল্লি আছে, আমেরিকারও দিল্লিকে দরকার। দিল্লি আছে আমরা আছি। - Click This Link
>। পাবলিক খায় তাই তলে তলে ও খেলা হবে বলি-কাদের - Click This Link
> ঢাকা অবরোধ করতে এলে শাপলা চত্বরের চেয়ে করুণ পরিণতি হবে - কাদের - https://bangla.dhakatribune.com/politics/72076/
>বিএনপিকে নিয়ে একই উপহাস আর কত করবেন ওবায়দুল কাদের - Click This Link
>মির্জা ফখরুলের পকেট গরম, মালপানি ভালো আসছে: ওবায়দুল কাদের - https://dailyinqilab.com/national/news/610661
> তত্ত্বাবধায়ক সরকার এখন আজিমপুর কবরস্থানে: ওবায়দুল কাদের - https://www.ittefaq.com.bd/663596/


ছবি - newsbangla24.com

৬। স্বপ্নপুরীর দ্বিতীয় শীর্ষস্থানীয় দল বিএনপি আটকে আছে তাহার চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় - বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বর্তমানে ৩৭টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে ৩৫টি মামলায় তিনি জামিনে রয়েছেন। বাকি দুটো মামলায় তার সাজা হয়েছে। এর মধ্যে তিনি জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১০ বছরের সাজা ভোগ করছেন।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা

ট্রাস্টের নামে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ২০০৮ সালে ৩ জুলাই জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। পরে ওই রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া হাইকোর্টে আপিল করলে তা খারিজ হয়ে যায়। একইসঙ্গে দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সাজার পরিমাণ বাড়িয়ে ১০ বছর কারাদণ্ড দেয় হাইকোর্ট।

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগে ২০১০ সালের ৮ আগস্ট রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলাটি করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এ মামলায় ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর রায় ঘোষণা করেন পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। রায়ে খালেদা জিয়াসহ অন্য তিন আসামিকে সাত বছর করে কারাদণ্ড দেয়া হয়। এ ছাড়া প্রত্যেককে ১০ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়া আপিল করলে ২০১৯ সালের ৩০শে এপ্রিল তা শুনানির জন্য গ্রহণ করে অর্থদণ্ড স্থগিত করে হাইকোর্ট। এরপর থেকে মামলাটি সে অবস্থায় আছে।

এ মুহূর্তে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে অত্যন্ত অসহায় বলেই মনে হচ্ছে। একসময় প্রতাপশালী নেত্রী আজ বন্দি অবস্থায় হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছেন। দলের নেতারা তার মুক্তির দাবিতে হম্বিতম্বি করলেও কার্যকর কিছু আজ পর্যন্ত করতে পারেননি। প্রমাণ হয়ে গেছে দলটি তাদের নেত্রীর জন্য কিছু করতে অক্ষম সাথে সাথে তাদের রাজনৈতিক দাবী আদায়েও যে ততটা সক্ষম নন,তা প্রমাণিত। সর্বশেষ - দেশের চিকিৎসকদের সর্বোচ্চ সীমা অতিক্রমের (আর কোন কিছু তাহাদের পক্ষে করা না থাকায়) তাহার চিকিৎসার জন্য আমেরিকা থেকে ৩ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এসেছেন এবং তাহার চিকিৎসা কাজে অংশগ্রহন করেছেন।

>বাংলাদেশে বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়ার চিকিৎসা কোথায় আটকে আছে ? - https://www.bbc.com/bengali/news-44485123
>আইনের মারপ্যাচ ও খালেদা জিয়ার চিকিৎসা - https://bangla.bdnews24.com/opinion/6yztpy58l4
>খালেদার চিকিৎসা, নাকি সরকারবিরোধী আন্দোলন, কোন পথে বিএনপি?- https://www.somoynews.tv/news/2021-12-02/
>খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়েই ঘুরপাক বিএনপি - Click This Link
>অসহায় খালেদা জিয়া, অক্ষম বিএনপি - Click This Link
> খালেদা জিয়ার জন্য আন্দোলনের গতি বাড়াবে বিএনপি - https://www.ajkerpatrika.com/101574/
> খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার দাবি,বাস্তবতা ও বিএনপির আন্দোলন - https://www.newsbangla24.com/column/175323/



ছবি - .jagonews24.com

৭। স্বপ্নপুরীর সর্বশেষ অবস্থা/পরিস্থিতি - কিছুদিন আগেই স্বপ্নপুরী প্রবেশ করেছে আনবিক যুগে, যার ধারাবাহিকতায় গতকালই সে প্রবেশ করেছে টানেলের জগতে । বাংলাদেশের চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশ বাংলাদেশের প্রথম বহুলেন সড়ক টানেল উদ্বোধন করা হয়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৮শে অক্টোবর শনিবার টানেলটি উদ্বোধন করেন। বাংলাদেশ সরকার এটির নামকরণ করেছে বঙ্গবন্ধু টানেল। দক্ষিণ এশিয়ায় নদীর তলদেশ দিয়ে যানবাহন চলাচলকারী প্রথম টানেল এটি। সরকারের মেগাপ্রকল্পগুলোর মধ্যে এটি একটি, যেটা নির্বাচনের আগে উদ্বোধন করা হলো।যার মোট দৈর্ঘ্য ৯.৩৯ কিমি তার মধ্যে মূল টানেলের দৈর্ঘ্য ৩.৩১৫ কিমি এবং এপ্রোচ সড়কের দৈর্ঘ্য ৫.৩৫ কিমি।যার প্রবেশপথ চট্টগ্রাম বিমানবন্দর ও সমুদ্রবন্দরের কাছে, কর্ণফুলী নদীর ভাটির দিকে নেভি কলেজের কাছে এবং বহির্গমন – আনোয়ারা প্রান্তে সার কারখানার কাছে।এই টানেল নির্মাণের মূল উদ্দেশ্য চট্টগ্রাম শহরকে চীনের সাংহাই শহরের আদলে “ওয়ান সিটি টু টাউন” বা “এক নগর দুই শহর” এর মডেলে গড়ে তোলা। লিংক - Click This Link


ছবি - samakal-online

সরকার পক্ষের বিরোধী রাজনৈতিক দলের সমাবেশ বাতিলের প্রচেষ্টা এবং বিরোধীদলের হরতাল - নিরপেক্ষে সরকারের অধীনে নির্বাচনের একদফা দাবীতে ২৮শে অক্টোবর শনিবার স্বপ্নপুরীর সকল বিরোধীদলের সমাবেশ ছিল। সেই সমাবেশ বাতিলের জন্য এবং জনসমাগম রোধের জন্য সরকার ও তার সহযোগী সংগঠন এবং প্রশাসনের সহায়তায় এমন কোন পদক্ষেপ বাকী রাখেনি যা তাদের পক্ষে করা সম্ভব ছিল।

সমাবেশের বিলম্ব অনুমতি-হামলা-মামলা-গ্রেফতার-মোবাইল চেকিং-ইন্টারনেট বন্ধ-যানবাহনে তল্লাশী কোন কিছুই বাকি রাখেনি। এত সব কিছুর পরেও স্বপ্নপুরীর শাসকদল জনসমাবেশ বন্ধ করতে পারেনি। আর সেই সমাবেশ যখন মোটামুটি শান্তিপূর্ণ ভাবে চলছিল তখন কোন এক এক অদৃশ্য কারনে কিংবা ঘটনা-দূর্ঘটনায় সেখানে শুরু হয় গোলযোগ। যার কারনে সভা শেষের আগেই শেষ হয়ে যায় এবং তারই প্রেক্ষাপটে আজ বিএনপি-জামাত দেশ ব্যাপী ডাক দিয়েছে হরতালের এবং স্বপ্নপুরী আবারো প্রবেশ করছে হরতালে।এদিকে যথারীতি ক্ষমতাশীন দল ঘোষনা দিয়েছে মাঠে থাকার এবং বিরোধীদলের হরতাল প্রতিহত করার । তার সাথে সাথে চলছে বিরোধীদলের স্থানীয় থেকে জাতীয় ,আতি-পাতি থেকে নেতৃস্থানীয় সকল পর্যায়ের নেতাদের গ্রেফতার।এদিকে যথারীতি ওবায়দুল কাদের আছেন সেই চিরচেনা আক্রমণাত্মক কথার ভংগিতে ও খেলা নিয়ে - লিংক - Click This Link এবং বিএনপি ফাউল করছে, লাল কার্ড দেখাতে হবে : ওবায়দুল কাদের - Click This Link

আহা কি আনন্দ @@@@@@@, আকাশে - বাতাসে।
আমার সোনার স্বপ্নপুরীতে।
সর্বশেষ এডিট : ২৯ শে অক্টোবর, ২০২৩ দুপুর ১:৪৮
৯টি মন্তব্য ৯টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

আবারও রাফসান দা ছোট ভাই প্রসঙ্গ।

লিখেছেন মঞ্জুর চৌধুরী, ১৮ ই মে, ২০২৪ ভোর ৬:২৬

আবারও রাফসান দা ছোট ভাই প্রসঙ্গ।
প্রথমত বলে দেই, না আমি তার ভক্ত, না ফলোয়ার, না মুরিদ, না হেটার। দেশি ফুড রিভিউয়ারদের ঘোড়ার আন্ডা রিভিউ দেখতে ভাল লাগেনা। তারপরে যখন... ...বাকিটুকু পড়ুন

মসজিদ না কী মার্কেট!

লিখেছেন সায়েমুজজ্জামান, ১৮ ই মে, ২০২৪ সকাল ১০:৩৯

চলুন প্রথমেই মেশকাত শরীফের একটা হাদীস শুনি৷

আবু উমামাহ্ (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, ইহুদীদের একজন বুদ্ধিজীবী রাসুল দ. -কে জিজ্ঞেস করলেন, কোন জায়গা সবচেয়ে উত্তম? রাসুল দ. নীরব রইলেন। বললেন,... ...বাকিটুকু পড়ুন

আকুতি

লিখেছেন অধীতি, ১৮ ই মে, ২০২৪ বিকাল ৪:৩০

দেবোলীনা!
হাত রাখো হাতে।
আঙ্গুলে আঙ্গুল ছুঁয়ে বিষাদ নেমে আসুক।
ঝড়াপাতার গন্ধে বসন্ত পাখি ডেকে উঠুক।
বিকেলের কমলা রঙের রোদ তুলে নাও আঁচল জুড়ে।
সন্ধেবেলা শুকতারার সাথে কথা বলো,
অকৃত্রিম আলোয় মেশাও দেহ,
উষ্ণতা ছড়াও কোমল শরীরে,
বহুদিন... ...বাকিটুকু পড়ুন

ক- এর নুডুলস

লিখেছেন করুণাধারা, ১৮ ই মে, ২০২৪ রাত ৮:৫২



অনেকেই জানেন, তবু ক এর গল্পটা দিয়ে শুরু করলাম, কারণ আমার আজকের পোস্ট পুরোটাই ক বিষয়ক।


একজন পরীক্ষক এসএসসি পরীক্ষার অংক খাতা দেখতে গিয়ে একটা মোটাসোটা খাতা পেলেন । খুলে দেখলেন,... ...বাকিটুকু পড়ুন

স্প্রিং মোল্লার কোরআন পাঠ : সূরা নং - ২ : আল-বাকারা : আয়াত নং - ১

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ১৮ ই মে, ২০২৪ রাত ১০:১৬

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম
আল্লাহর নামের সাথে যিনি একমাত্র দাতা একমাত্র দয়ালু

২-১ : আলিফ-লাম-মীম


আল-বাকারা (গাভী) সূরাটি কোরআনের দ্বিতীয় এবং বৃহত্তম সূরা। সূরাটি শুরু হয়েছে আলিফ, লাম, মীম হরফ তিনটি দিয়ে।
... ...বাকিটুকু পড়ুন

×