somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

মঠ (স্মৃতি-মন্দির) দর্শন : ০০৩ : আমিনপুর মঠ ও ঠাকুরবাড়ি মঠ

০৭ ই নভেম্বর, ২০২২ রাত ১:৫৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


প্রাচীন স্থাপত্য দেখার আলাদাটা একটা আকর্ষণ আছে। আমি মাঝে মাঝেই সুযোগ হলে তাদের দেখতে বেরহই। প্রাচীন স্থাপনা গুলির মধ্যে মঠ বা স্মৃতি-মন্দির খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রাচীন মঠ বা স্মৃতি-মন্দিরগুলি আমাদের দেশের ইতিহাসেরই অংশ। চেষ্টা করবো মঠ গুলির সঠিক অবস্থান ও অবস্থার বর্ণনা করতে। সেই সাথে চেষ্টা করবো মঠ গুলির সামান্য ইতিহাস তুলে ধরতে। তবে অনেক ক্ষেত্রেই মঠগুলির কোনো ইতিহাস খুঁজে পাওয়া যায় না।

মূলত আদিতে সম্ভ্রান্ত, অভিজাত, মর্যাদাশালী, কুলীন, ধনী কোন হিন্দু ব্যক্তি মারা গেলে তাঁর স্মৃতির উদ্দেশ্যে এই স্মৃতি-মন্দির গুলি তৈরি করা হতো। এই স্মৃতি-মন্দিরগুলি কালক্রমে এই বাংলায় মঠ নামে পরিচিতি পেয়ে গেছে। বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় এই মঠ বা স্মৃতি-মন্দিরগুলি শিব মন্দির হিসেবে ব্যবহার করা হয়। কোথাও কোথাও মনসা মন্দির হিসেবেও ব্যবহার হতে দেখা যায়। তবে অনেক মঠ বা স্মৃতি-মন্দির পরিত্যাক্ত অবস্থা অযত্ন অবহেলায় পরে আছে।


আমিনপুর মঠ


বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার পানামনগরে ঠিক উত্তর পাশে আমিনপুর খেলার মাঠের উত্তর পশ্চিম কোনে ছোট্ট এই প্রাচীন মঠটির অবস্থান। প্রকৃতপক্ষে এই মঠটির কোনো নাম আমি সেখানে দেখতে পাইনি। মঠের অভ্যন্তরে প্রবেশের একমাত্র দরজাটি নেই হয়ে গেছে আরো অনেক আগেই। খুব উল্লেখযোগ্য কিছু নয়। এর অবস্থান আমিনপুরে বলেই এর নাম হয়েছে আমিনপুর মঠ।
মঠটি এখন পরিত্যক্ত হলেও একসময় এটিকে সংস্কার করা হয়েছিলো বুঝা যায়। মঠের নিচের অংশে একটি প্রবেশ পথ রয়েছে। ঠিক তার উপরেই দ্বিতীয় রয়েছে একটি জানালার মতো অংশ। তার উপর থেকেই ঢেউ খেলানো চূড়াটি ক্রমশ সুরু হয়ে উপরে উঠে গিয়ে শীর্ষে মিলেছে।



আমিনপুর ঠাকুর বাড়ি মঠ


আমিনপুর মাঠ পেরিয়ে উত্তর দিকে আরো কিছুটা পথ এগিয়ে গেলে সামনে বড় বড় আম-কাঠালের গাছ ও ঝোপ-ঝারের আড়ালে চোখে পরবে একটি বেশ পুরনো বনেদি বাড়ি। বাড়িটি ঠাকুর বাড়ি নামে পারিচিতো। ঠাকুর বাড়ির উত্তর-পূর্ব পাশে রয়েছে বিশাল আকারের আরেকটি মঠ (স্মৃতি-মন্দির)। মঠটির চারপাশে বড় বড় গাছ পালায় ছেয়ে আছে। ফলে কোনো ভাবে মঠটির পূর্ণাবয়বের ছবি তোলা সম্ভব হয়নি। মঠটি বেশ ভালো অবস্থাতেই রয়েছে।





দুঃখজনক হলেও সত্যি এই মঠটি সম্পর্কে কোনো কিছুই জানতে পারা যায় না। এই মঠটির নির্মাতা সম্পর্কে সঠিক কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। কে কবে কার স্মৃতির উদ্দেশ্যে এই মঠটি নির্মাণ করেছিলো তার কোনো তথ্যই আমি পাই নি। আমার মনে হয় বাড়ির লোকজনের সাথে কথা বলা গেলে কিছু তথ্য হয়তো জানা যেতেও পারে। তবে বাড়ির লোকজনের সাথে চেষ্টা করেও তখন কথা বলা যায়নি। বাড়িতে পুরুষ মানুষ কেউ ছিলো না। মহিলারা কেউ কথা বলতে আসে নি। সম্ভবতো বাড়ির মালিকানা নিয়ে কিছু ঝামেলা আছে যেমনটা এমন প্ররনো বাড়িতে থাকে। সেই জন্য তারা বাহিরের লোকদের কিছু সন্দেহের চোখে দেখে অভ্যস্ত এবং এড়িয়ে চলাই সেফ মনে করে।





মঠটি এখনো বেশ ভালো অবস্থাতেই আছে। পরিত্যক্ত নয়, একমাত্র প্রবেশ পথে নতুন করে লোহার গ্রীল তার প্রমান। সম্ভবতো মঠটি এখন শিব মন্দির হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। বেশ মজবুত করে পুরনো দিনের সেই ঐতিহ্যবাহী পোড়ামাটির লাল ইটা আর চুন-সুড়কি দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছিলো এই বিশাল মঠটিকে। মঠটির উচ্চতা অনুমান করি ৭০-৭৫ ফুট হবে। একটি বেশ বড় চারকোনা প্লাটফর্মের উপর এই মঠটি দাঁড়িয়ে আছে। অষ্টভূজাকৃতির বিশাল এই মঠটিতে তেমন কোনো কারুকাজ না থাকলেও তিন ধাপে খিলানা দরজার মত কাজ রয়েছে। তৃতীয় ধাপ থেকে ঢেউ খেলানো চূড়াটি ক্রমশ সুরু হয়ে উপরে উঠে গিয়ে শীর্ষে মিলেছে।

আমার বড় কন্যা সাইয়ারা নাজিবা সোহেন


বিশেষ দ্রষ্টব্য : প্রাচীন বলতে এখানে প্রচীন যুগকে বুঝানো হয়নি। প্রচীন বলতে এখানে বুঝানো হয়েছে -
অতীত, অতীতকালীন, আগেকার, কালজীর্ণ, জীর্ণ, দীর্ঘকাল ধরে বর্তমান, পুরাতন, পুরান, পুরানো, পূর্বকালীন, প্রত্ন, প্রাক্তন, বয়স্ক, বয়োবৃদ্ধ, বর্ষীয়ান, বহুকালের, বহুকেলে, বহুযুগ আগেকার, বার্ধক্যগ্রস্ত, বিগতকালের, মান্ধাতার আমলের, সাবেক, সাবেকী, সেকেলে, স্মরণাতীত, স্মরণাতীত কালের ‌ইত্যাদি। আর মঠ বলতে স্মৃতি-মন্দির বুঝানো হয়েছে।


ছবি তোলার তারিখ : ২৮/১০/২০১৬ ইং
অবস্থান : আমিনপুর, পানামনগর, সোনারগাঁ, নারায়ণগঞ্জ, বাংলাদেশ।
GPS coordinates আমিনপুর মঠ : 23°39'25.9"N 90°36'11.3"E এবং
আমিনপুর ঠাকুর বাড়ি মঠ : 23°39'32.1"N 90°36'13.8"E
গুগল ম্যাপ আমিনপুর মঠ : https://goo.gl/maps/15UkSf9TJmehJPdj8 এবং
আমিনপুর ঠাকুর বাড়ি মঠ : https://goo.gl/maps/N2XgRR1SijZeiNaBA
তথ্য সূত্র : মরুভূমির জলদস্যু
ছবি ও বর্ণনা : মরুভূমির জলদস্যু

=================================================================
আরো দেখুন -
মঠ (স্মৃতি-মন্দির) দর্শন : ০০১ : পালপাড়া মঠ
মঠ (স্মৃতি-মন্দির) দর্শন : ০০২ : সেনপাড়া মঠ

বাংলার প্রাচীন মঠ (স্মৃতি-মন্দির) সমগ্র - ০১
বাংলার প্রাচীন মঠ (স্মৃতি-মন্দির) সমগ্র - ০২
বাংলার প্রাচীন মঠ (স্মৃতি-মন্দির) সমগ্র - ০৩


হেরিটেজ ট্যুর ২৫ : আড়াইহাজার - সোনারগাঁও
হেরিটেজ ট্যুর ২৬ : মানিকগঞ্জ - নাগরপুর
হেরিটেজ ট্যুর ২৮ : চাঁদপুর
হেরিটেজ ট্যুর ২৯ : নরসিংদী - কিশোরগঞ্জ
হেরিটেজ ট্যুর ৩১ : নরসিংদী - গাজীপুর
হেরিটেজ ট্যুর ৬৫ : নারায়ণগঞ্জ - মুন্সিগঞ্জ



মসজিদ দর্শন : ০১ : মহজমপুর শাহী মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০২ : ষাট গম্বুজ মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৩ : বিবি বেগনী মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৪ : চুনাখোলা মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৫ : নয় গম্বুজ মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৬ : জিন্দা পীর মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৭ : সিঙ্গাইর মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৮ : গোয়ালদি মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ০৯ : আবদুল হামিদ মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ১০ : পুরান বাজার জামে মসজিদ
মসজিদ দর্শন : ১১ : হাজীগঞ্জ বড় মসজিদ


আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ১ম পর্ব
আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ২য় পর্ব
আমার দেখা প্রচীন মসজিদ – ৩য় পর্ব


বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০১
বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০২
বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০৩
বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০৪
বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০৫
বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০৬
বাংলার জমিদার বাড়ি সমগ্র - ০৭

জমিদার বাড়ি দর্শন : ০০১ : বালিয়াপাড়া জমিদার বাড়ি
জমিদার বাড়ি দর্শন : ০০২ : বীরেন্দ্র রায় চৌধুরী বাড়ি
জমিদার বাড়ি দর্শন : ০০৩ : জ্যোতি বসুর পৈতৃক বাড়ি

আমার দেখা প্রচীন মন্দির সমগ্র - ০১
আমার দেখা প্রচীন মন্দির সমগ্র - ০২
আমার দেখা প্রচীন মন্দির সমগ্র - ০৩
আমার দেখা প্রচীন মন্দির সমগ্র - ০৪
=================================================================
সর্বশেষ এডিট : ০৭ ই নভেম্বর, ২০২২ রাত ১:৫৯
৯টি মন্তব্য ৯টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

আপনি কি বেদ, উপনিষদ, পুরাণ, ঋগ্বেদ এর তত্ত্ব বিশ্বাস করেন?

লিখেছেন শেরজা তপন, ২২ শে এপ্রিল, ২০২৪ সন্ধ্যা ৭:৫২


ব্লগে কেন বারবার কোরআন ও ইসলামকে টেনে আনা হয়? আর এই ধর্ম বিশ্বাসকে নিয়েই তর্ক বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে সবাই? অন্য ধর্ম কেন ব্লগে তেমন আলোচনা হয় না? আমাদের ভারত... ...বাকিটুকু পড়ুন

দুলে উঠে

লিখেছেন সাইফুলসাইফসাই, ২২ শে এপ্রিল, ২০২৪ রাত ৯:৫৬

দুলে উঠে
সাইফুল ইসলাম সাঈফ

মন খুশিতে দুলে দুলে ‍উঠে
যখনই শুনতে পাই ঈদ শীঘ্রই
আসছে সুখকর করতে দিন, মুহূর্ত
তা প্রায় সবাকে করে আনন্দিত!
নতুন রঙিন পোশাক আনে কিনে
তখন ঐশী বাণী সবাই শুনে।
যদি কারো মনে... ...বাকিটুকু পড়ুন

তরে নিয়ে এ ভাবনা

লিখেছেন মৌন পাঠক, ২২ শে এপ্রিল, ২০২৪ রাত ১০:৩০

তরে নিয়ে এ ভাবনা,
এর শুরু ঠিক আজ না

সেই কৈশোরে পা দেয়ার দিন
যখন পুরো দুনিয়া রঙীন
দিকে দিকে ফোটে ফুল বসন্ত বিহীন
চেনা সব মানুষগুলো, হয়ে ওঠে অচিন
জীবনের আবর্তে, জীবন নবীন

তোকে দেখেছিলাম,... ...বাকিটুকু পড়ুন

আপনি কি পথখাবার খান? তাহলে এই লেখাটি আপনার জন্য

লিখেছেন মিশু মিলন, ২২ শে এপ্রিল, ২০২৪ রাত ১০:৩৪

আগে যখন মাঝে মাঝে বিকেল-সন্ধ্যায় বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দিতাম, তখন খাবার নিয়ে আমার জন্য ওরা বেশ বিড়ম্বনায় পড়ত। আমি পথখাবার খাই না। ফলে সোরওয়ার্দী উদ্যানে আড্ডা দিতে দিতে ক্ষিধে পেলে... ...বাকিটুকু পড়ুন

কষ্ট থেকে আত্মরক্ষা করতে চাই

লিখেছেন মহাজাগতিক চিন্তা, ২৩ শে এপ্রিল, ২০২৪ দুপুর ১২:৩৯



দেহটা মনের সাথে দৌড়ে পারে না
মন উড়ে চলে যায় বহু দূর স্থানে
ক্লান্ত দেহ পড়ে থাকে বিশ্রামে
একরাশ হতাশায় মন দেহে ফিরে।

সময়ের চাকা ঘুরতে থাকে অবিরত
কি অর্জন হলো হিসাব... ...বাকিটুকু পড়ুন

×